Text size A A A
Color C C C C
পাতা

কী সেবা কীভাবে পাবেন

১।প্রশিক্ষণ (আত্মকর্ম)

২। প্রশিক্ষণ (উত্তরবঙ্গ প্রকল্প)

৩। ঋণ প্রদান (আত্মকর্ম)

৪। ঋণ প্রদান (উত্তরবঙ্গ প্রকল্প)

সেবা পাবার পদ্ধতি

সেবা পাবার পদ্ধতি

সেবা পাবার পদ্ধতি

সেবা পাবার পদ্ধতি

(১) উপজেলা যুব উন্নয়ন কর্মকর্তার বরাবরে প্রশিক্ষণ গ্রহণের জন্য দরখাসত্ম বা আবেদন করতে হবে।

(২) পার্সপোর্ট সাইজের সত্যায়িত ছবি।

(৩) জাতীয় পরিচয়পত্রের সত্যায়িত ফটোকপি।

(৪) নাগরিকত্বের সনদপত্রের সত্যায়িত ফটোকপি।

(৫) শিক্ষাগত যোগ্যতার সনদপত্রের সত্যায়িত ফটোকপি। সর্বনিম্ন  শিক্ষগত যোগ্যতা অষ্টম শ্রেণী পাশ।

(৬) বয়সঃ ১৮-৩৫ বছর।

(৭)প্রশিক্ষণের মেয়াদঃ অপ্রাতিষ্ঠানিক ৭-১০ দিন। প্রাতিষ্ঠানিক ১ মাস অথবা ২ মাস ১৫ দিন অথবা ৪ মাস অথবা ৬ মাস।

(৮) অপ্রাতিষ্ঠানিক প্রশিক্ষণ উপজেলা যুব উন্নয়ন কর্মকর্তার কার্যালয়ের মাধ্যমে পরিচালিত হয়।

(৯) প্রাতিষ্ঠানিক প্রশিক্ষণ উপ-পরিচালকের কার্যালয়, যুব উন্নয়ন অধিদপ্তর, লালমনিরহাট এবং যুব প্রশিক্ষণ কেন্দ্র, হাড়ীভাঙ্গা লালমনিরহাটের মাধ্যমে পরিচালিত হয়।

(১০)প্রশিক্ষণশেষে প্রশিক্ষণার্থীদেরকে সনদপত্র বিতরণ করা হয়। উক্ত সনদপত্রের ভিত্তিতে যুব ঋণ বিতরণ করা হয়।

(১) উপজেলা যুব উন্নয়ন কর্মকর্তা বরাবরে উত্তরবঙ্গ প্রকল্পের প্রশিক্ষণ গ্রহণের জন্য দরখাসত্ম বা আবেদন করতে হবে।

(২) উত্তরবঙ্গ প্রকল্পের নীতিমালা অনুযায়ী সংশিস্নষ্ট ক্রেডিট সুপারভাইজার আবেদনকারীর আবেদনপত্র যাচাই-বাচাই করার জন্য নির্দিষ্ট ফরমে সরেজমিনে জরীপ করে দল ও কেন্দ্র গঠন করবেন এবং প্রশিক্ষণার্থীদের তালিকা উপজেলা যুব উন্নয়ন কর্মকর্তা বরাবরে দাখিল করবেন।

(৩) উপজেলা যুব উপন্নয়ন কর্মকর্তা কেন্দ্র পরিদর্শন করে প্রশিক্ষণার্থীদের নামের তালিকা ও প্রশিক্ষণের সিডিউল উপ-পরিচালক, যুব উন্নয়ন অধিদপ্তর, লালমনিরহাট বরাবরে অনুমোদনের জন্য দাখিল করিবেন।

(৪) উপ-পরিচালক যুব উন্নয়ন অধিদপ্তর, লালমনিরহাট কর্তৃক প্রশিক্ষণার্থীদের নামের তালিকা ও প্রশিক্ষণের সিডিউল অনুমোদিত হওয়ার পর প্রশিক্ষণ কর্মসূচী শুরম্ন করা হয়।

(৫) প্রশিক্ষণার্থীদের ১০ দিন মেয়াদী গাভী পালন/গরম্ন মোটাতাজাকরণ/নার্সারী বিষয়ক ট্রেডে প্রশিক্ষণদেওয়া হয়।

(৬) শিক্ষাগত যোগ্যতাঃ অষ্টম শ্রেণী পাশ বয়সঃ ১৮-৩৫ বছর।

(৭) একই পরিবারে উদ্যেগী ও যোগ্য ৫ (পাঁচ) জন সদস্য নিয়ে দল গঠন করা হয়। কোন ক্ষেত্রে ৫ (পাঁচ) সদস্য পাওয়া না গেলে রক্ত সম্পর্কিয় পার্শ্ববর্তী পরিবারের সদস্য নিয়ে দল গঠন করা হয়। দলে পুরম্নষ ও মহিলা থাকতে পারবেন। দলের সদস্যদেরকে অবশ্যই এলাকার স্থায়ী বাসিন্দা হতে হবে। ৫ টি দল নিয়ে মোট ২৫ জনকে নিয়ে একটি কেন্দ্র গঠন করা হয়।

(৮) উপজেলা যুব উন্নয়ন কর্মকর্তার কার্যালয়ের মাধ্যমে একটি ইউনিয়নে যে গ্রামে কেন্দ্র গঠিত হয় সেই গ্রামেই প্রশিক্ষণ কর্মসূচী বাসত্মবায়ন করা হয়।

(৯)প্রশিক্ষণ শেষে প্রশিক্ষণার্থীদেরকে সনদপত্র বিতরণ করা হয় এবং উক্ত সনদপত্রের ভিত্তিতে উত্তরবঙ্গ প্রকল্পের ঋণ বিতরণ করা হয়।

(১) উপজেলা যুব উন্নয়ন কর্মকর্তার বরাবরে আত্মকর্মসূচীর ঋণের জন্য প্রকল্প জরীপ ও ঋণ প্রদানের জন্য দরখাসত্ম বা আবেদন করতে হবে।

(২)প্রশিক্ষণ গ্রহণের সনদপত্রের সত্যায়িত ফটোকপি।

(৩) জাতীয় পরিচয়পত্রের সত্যায়িত ফটোকপি।

(৪) পার্সপোর্ট সাইজের সত্যায়িত ছবি।

(৫) নাগরিকত্বের সনদপত্রের সত্যায়িত ফটোকপি।

(৬) উপজেলা যুব উন্নয়ন কর্মকর্তার নির্দেশে সংশিস্নষ্ট ক্রেডিট সুপারভাইজার সরেজমিনে প্রকল্প পরিদর্শনপূর্বক মতামত দাখিল করলে উপজেলা যুব উন্নয়ন কর্মকর্তা প্রকল্পটি সরেজমিনে পরিদর্শন করবেন এবং সংশিস্নষ্ট আবেদনকারীকে যুব ঋণের ফরম প্রদানের ব্যবস্থা করিবেন।

(৭) যুব ঋণের ফরমের জন্য সরকার নির্ধারিত ১০ টাকা ট্রেজারী চালানে জমা দিতে হবে।

(৮) আবেদনকারীকে যুব ঋণের আবেদন ফরম,  জামিনদারের জমির মূল দলিলসহ অন্যান্য প্রয়োজনীয় কাগজপত্র সমূহ উপজেলা যুব উন্নয়ন কর্মকর্তার বরাবরে দাখিল করতে হবে।

(৯) অপ্রাতিষ্ঠানিক যুব ঋণ উপজেলা যুব উন্নয়ন কমিটির সভায় অনুমোদিত হয় এবং প্রাতিষ্ঠানিক যুব ঋণ জেলা যুব ঋণ কমিটির সভায় অনুমোদিত হয়। যুব ঋণ অনুমোদিত হওয়ার পর সংশিস্নষ্ট ঋণীর সাথে ৩০০ (তিন শত টাকার) নন জুটিশিয়াল ষ্ট্যাম্পে চুক্তি বা অঙ্গীকারনামা করা হয়।

(১০) চুক্তিপত্র বা অঙ্গীকারনামা হওয়ার পর সংশিস্নষ্ট ঋণীকে অনুমোদিত যুব ঋণের ৫% অগ্রীম সঞ্চয় জমা দিতে হয়।

(১১) সর্বশেষ সংশিস্নষ্ট ঋণীকে অনুমোদিত ঋণের ক্রস চেক প্রদান করা হয়।

(১২) একজন ঋণীকে ৩ বার ঋণ দেওয়া হয়।

(১৩) ঋণের পরিমাণ অপ্রাতিষ্ঠানিক ঋণ ২৫,০০০-৪০,০০০ টাকা পর্যমত্ম। প্রাতিষ্ঠানিক ঋণ ৪০,০০০-৭৫,০০০ টাকা পর্যমত্ম দেওয়া হয়।

(১৪) ঋণের সুদের হার ক্রমহ্রাসমান পদ্ধতিতে ১০% হারে। পরিশোধের সময়সীমা ২৪ মাস। ৩ মাস গ্রেস পিরিয়ড।

(১) উপজেলা যুব উন্নয়ন কর্মকর্তার বরাবরে উত্তরবঙ্গ প্রকল্পের ঋণ গ্রহণের জন্য প্রকল্প জরীপ ও ঋণ প্রদানের জন্য দরখাসত্ম বা আবেদন করতে হয়।

(২)প্রশিক্ষণ গ্রহণের সনদপত্রের সত্যায়িত ফটোকপি।

(৩) জাতীয় পরিচয়পত্রের সত্যায়িত ফটোকপি।

(৪) পার্সপোর্ট সাইজের সত্যায়িত ছবি।

(৫) নাগরিকত্বের সনদপত্রের সত্যায়িত ফটোকপি।

(৬) উপজেলা যুব উন্নয়ন কর্মকর্তার নির্দেশে সংশিস্নষ্ট ক্রেডিট সুপারভাইজার সরেজমিনে প্রকল্প পরিদর্শনপূর্বক মতামত দাখিল করলে উপজেলা যুব উন্নয়ন কর্মকর্তা প্রকল্পটি সরেজমিনে পরিদর্শন করবেন এবং সংশিস্নষ্ট আবেদনকারীকে যুব ঋণের ফরম প্রদানের ব্যবস্থা করিবেন।

(৭) যুব ঋণের ফরমের জন্য সরকার নির্ধারিত ১০ টাকা ট্রেজারী চালানে জমা দিতে হবে।

(৮) আবেদনকারীকে যুব ঋণের আবেদন ফরম,  জামিনদারের জমির মূল দলিলসহ অন্যান্য প্রয়োজনীয় কাগজপত্র সমূহ উপজেলা যুব উন্নয়ন কর্মকর্তার বরাবরে দাখিল করতে হবে।

(৯) উত্তরবঙ্গ প্রকল্পের ঋণ বিতরণের জন্য উপজেলা ঋণ কমিটির সভায় সংশিস্নষ্ট ঋণের আবেদন ফরম প্রয়োজনীয় কাগজপত্রসহ উপস্থাপন করতে হবে।

(১০) ঋণ অনুমোদিত হওয়ার পর সংশিস্নষ্ট ঋণীর সাথে ৩০০ (তিন শত টাকার) নন জুটিশিয়াল ষ্ট্যাম্পে চুক্তি বা অঙ্গীকারনামা করা হয়।

(১১) চুক্তিপত্র বা অঙ্গীকারনামা হওয়ার পর সংশিস্নষ্ট ঋণীকে অনুমোদিত ঋণের ৫% অগ্রীম সঞ্চয় জমা দিতে হয়।

(১২) সর্বশেষ সংশিস্নষ্ট ঋণীকে অনুমোদিত ঋণের ক্রস চেক প্রদান করা হয়।

(১৩) উত্তরবঙ্গ প্রকল্পের একটি কেন্দ্রে মোট ২৫ জন প্রশিক্ষণার্থীর ঋণের আবেদনের প্রেক্ষিতে ২৫ জনকে ঋণ প্রদান করা হয়।

(১৪) প্রত্যেক ঋণীকে ২৫,০০০ টাকা ঋণ প্রদান করা হয়।

(১৫) ঋণের সুদের হার ক্রমহ্রাসমান পদ্ধতিতে ১০% হারে। পরিশোধের সময়সীমা ২৪ মাস। ৩ মাস গ্রেস পিরিয়ড।